Select your Top Menu from wp menus

আরজে সাইমুরের পরিকল্পানায় স্বদেশ মাল্টিমিডিয়ার বৈশাখী আয়োজন

news

boishakhi shootপহেলা বৈশাখ বাঙালিদের একটি সর্বজনীন উৎসব। এবার স্বদেশ মাল্টিমিডিয়ার চেয়ারম্যান আরজে সাইমুর রহমান একটু ভিন্নভাবে বৈশাখী আয়োজনের পরিকল্পনা করেন। তার মধ্যে হলো বৈশাখী পোশাকে বৈশাখ বর্ষণ এবং ফটো শুটের ভিডিও ধারন। বিশ্বের সকল প্রান্তের সকল বাঙালি এ দিনে নতুন বছরকে বরণ করে নেয়, ভুলে যাবার চেষ্টা করে অতীত বছরের সকল দুঃখ-গ্লানি। এই আয়োজনে মডেল- প্রতিভা সাওন, সাইফ, রাশেদ প্রহর, ম্যাক, ছোঁয়া, সারাকা, সুমি, ইমা, মৌ, সেতু, প্রিয়াংকা, রাকা, ইমরান, নাহিদ, ইয়ামিন।
ফটোগ্রাফি- শেখ সাদি
ড্রেস- স্টার ওয়াল্ড কালেকশন, স্টুডি স্টিচ ও সিলভার রেইন বাংলাদেশ।
মেক ওভার- মেহেদী
সহযোগিতায়- রায়হান ও হাসান

Saraka-saifসবার কামনা থাকে যেন নতুন বছরটি সমৃদ্ধ ও সুখময় হয়। বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যবসায়ীরা একে নতুনভাবে ব্যবসা শুরু করার উপলক্ষ হিসেবে বরণ করে নেয়। আধুনিক বা প্রাচীন যে কোন পঞ্জিকাতেই এই বিষয়ে মিল রয়েছে। বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৪ এপ্রিল এই উৎসব পালিত হয়। বাংলা একাডেমী কর্তৃক নির্ধারিত আধুনিক পঞ্জিকা অনুসারে এই দিন নির্দিষ্ট করা হয়েছে। সারা বছর বাঙালি অপেক্ষা করে পহেলা বৈশাখের জন্য।

ema-rashed newsবৈশাখ রূপ নেয় মিলন মেলায়। শুধু নতুন পোশাকে নয় এই দিনটিতে আমরা গ্রামীণ মেলা, দেশি খাবারে ফিরে যাই হারানো সেই ছোট বেলায়। বাংলা বছরের প্রথম মাস বৈশাখ। পহেলা বৈশাখে রাজ্যের রঙ ছড়িয়ে পড়ে বাংলার অলিগলি, রাজপথে। নতুন ফসলের ঘ্রাণে মুগ্ধ কৃষক আনমনে গুনগুনিয়ে যায়। পাশেই মুগ্ধ কৃষাণীর মুখে ফুটে ওঠে আলোমাখা হাসি। হালখাতায় মিষ্টি বিলিয়ে পুরনো বছরের হিসেব চুকিয়ে আমাদের নতুন বছরে চিরাচরিত নিয়মে স্বাগত জানায় দোকানি।
পান্তা-ইলিশ আমাদের মনে স্বপ্নিল অনুভূতি জাগিয়ে দেয়! রমনার বটমূল থেকে চট্টগ্রামের ডিসি হিল হয়ে শিরিষ তলা সবখানেই এখন জমে ওঠে বৈশাখী মেলা।

sumiবৈশাখে পোশাক : নববর্ষ আমাদের জীবনে আনন্দের বারতা নিয়ে আসে। ঐতিহ্যবাহী এই দিনটিকে ঘিরে বাঙালির আগ্রহের কমতি নেই। ফ্যাশন হাউসগুলো ক্রেতাদের আগ্রহের বিষয়টি বিবেচনা করে বৈশাখ বরণের জন্য তৈরি করেছে আবহাওয়া উপযোগী আরামদায়ক সুতি পোশাক। বর্ষ বরণে নতুন দেশি পোশাক আমাদের ঐতিহ্যের অংশ। বর্ষবরণ উপলক্ষে দেশীয় ফ্যাশন হাউজগুলো আয়োজন করেছে দৃষ্টিনন্দন সব পোশাক।

rj saimur groupবৈশাখী আয়োজনে নানারকম পোশাকের মধ্যে শাড়ি, সালোয়ার কামিজ, ছেলে ও মেয়েদের ফতুয়া, লং পাঞ্জাবি, শর্ট পাঞ্জাবি, বাচ্চাদের পোশাক ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। এই বৈশাখী উৎসবে বর্ণিল পোশাকের বিপুল সমারোহে আড়ং-এ আপনি পাবেন মহিলাদের জন্য তাঁত, মনিপুরী, সিল্ক ও মসলিন শাড়ির অনবদ্য সংগ্রহ। ছেলেদের জন্য এই বৈশাখে সিলভার রেইন, স্টার ওয়াল্ড কালেকশন নিয়ে এসেছে নতুন ফিট কাটের শর্ট পাঞ্জাবি। দেশী বুননের, খাদি ও সুতি কাপড়ের এসব পাঞ্জাবি এই গ্রীষ্মের দাবদাহে যেমন আরামদায়ক তেমনি এর লাল, সবুজ, নীল ও হলুদ রঙে আপনাকে দেখাবে সতেজ ও আকর্ষণীয়। নববর্ষের প্রথম দিন যেমন নতুন পোশাক চাই তেমনি পুরো বৈশাখের জন্যও চাই আলাদা পোশাক। কেননা এ সময় প্রচণ্ড গরম আবহাওয়া বিরাজ করে। তাই একটু স্বচ্চির পোশাক যেন হয় এ সময়, সেটার প্রতি লক্ষ্য থাকে সবার। পয়লা বৈশাখে যে উৎসবমুখর পরিবেশ, তার বড় অনুষঙ্গ নতুন পোশাক। ঈদের পর পয়লা বৈশাখে এখন সবাই নতুন পোশাক পরে। লাল-সাদাসহ উজ্জ্বল সব রঙের নতুন পোশাক কেমন হবে আর এর সঙ্গে সাজটাই বা কী হওয়া চাই, এ নিয়ে চলে পরিকল্পনা। বৈশাখের প্রথম দিন সবাই নতুন কাপড় পরবে। কিন্তু কাপড়ের রংটা কী হবে? লাল-সাদা বা সাদা-লালের চিরায়ত ফ্যাশন তো রয়েছেই।

পাশাপাশি চলছে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা। বৈশাখী আয়োজনে নাগরদোলা হাজার বছরের পুরনো পদ্ধতি ইন্দোনেশিয়ান বাটিক প্রিন্টের কাজ এনেছে। বিভিন্ন নান্দনিক অলঙ্কারিক নকশাকে এবারের বৈশাখী বর্ণিল পোশাক সম্ভার অলঙ্করণের মূল অনুপ্রেরণা হিসেবে গ্রহণ করেছে। যে কারণে তাদের পোশাক হয়েছে যেমন বৈচিত্র্যময় তেমনি সৌন্দর্যমণ্ডিত। বৈশাখে ফ্যাশন হাউসগুলোতে এসেছে শাড়ি, থ্রি-পিস শার্ট, পাঞ্জাবি, ফতুয়া ও শিশুদের পোশাক। দেশীয় কাপড়ে বৈশাখী আমেজের রঙে ও নকশায় এসব পোশাক তৈরি করা হয়েছে বিভিন্ন প্রিন্ট ও হাতের কাজের মাধ্যমে। বৈশাখের বিভিন্ন বিষয়কে উপজীব্য করে তৈরি করা হয়েছে প্রতিটি শর্ট পাঞ্জাবি। সময় উপযোগী করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে আরাম দায়ক ফেব্রিকস। এ ছাড়াও এসেছে নতুন ডিজাইনের মেয়েদের বৈশাখি টপস।

newsশত ভাগ সুতি কাপড়ে তৈরি এসব কাপড়ে ব্যবহার করা হয়েছে গরম উপযোগী কাপড়। ফ্যাশন হাউস সিলভার রেইন বাংলাদেশ,  উৎসবের রঙে নিজেকে সাজাতে ট্রেন্ডি পাঞ্জাবি এনেছে। নকশাকারদের ডিজাইনকৃত মোটিভকে গ্রাফিক্স দিয়ে অলংকারিক করে পোশাকে আনা হয়েছে ভিন্নতা। আটসাট ক্যাটিং বৈশিষ্ট্যের শর্ট পাঞ্জাবি আর লং পাঞ্জাবিতে থাকছে এমব্রয়ডারি, প্রিন্ট বা এপ্লিকের কাজ। ফেব্রিক ভেরিয়েশনের কারণে গরমেও পাওয়া যাবে বিশেষ আরাম। সকল শোরুমে থাকছে বৈশাখের যাবতীয় নতুন ফ্যাশন আউটলাইন।

 

 

 

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *