শিরোনাম

জনপ্রিয় রন্ধণশিল্পী আফরোজা নাজনীন সুমি’র সাফল্যের গল্প

| ২৫ জুলাই ২০১৭ | ৩:০৫ পূর্বাহ্ণ

জনপ্রিয় রন্ধণশিল্পী আফরোজা নাজনীন সুমি’র সাফল্যের গল্প

স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর রহমান: নারীরাই আজ সফল ও সফলতার পথে। তেমনি অনেক নারী উদ্যোক্তারা এগিয়ে যাচ্ছেন সফলতার পথে। তেমনই একজন সফল রন্ধণশিল্পী ঢাকার মেয়ে আফরোজা নাজনীন সুমি। ঢাকার ধানমন্ডিতে যার শৈশব কেটেছে।  একজন দক্ষ রন্ধনশিল্পীর পাশাপাশি একজন দক্ষ গৃহিনীও। সুমি এইচ আর এর উপর এমবিএ করেছেন। এর পাশাপাশি রান্নার উপর বিশেষ প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেছেন।

রন্ধনশিল্পী আফরোজা নাজনীন সুমির সাথে স্বদেশ নিউজ ২৪.কমের সম্পাদক আরজে সাইমুর রহমানের সাথে একান্ত আলাপনে বের হয়ে আসে সফল রন্ধনশিল্পীর গল্প। তিনি জানান- রান্না শেখার প্রতি আমার প্রচন্ড আগ্রহ। রান্না আমাকে খুব বেশি টানে। মিষ্টি রান্না করা শেখার জন্য মিষ্টির দোকানের কারিগরকে বা সায় নিয়ে এসেছিলাম। রান্নার স্কুলে ভর্তি হয়ে রান্না শিখেছি। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন থেকে ফুড এন্ড বেভারেজ প্রডাকশন এর উপর ন্যাশনাল সার্টিফিকেট কোর্স করেছি তারপর ফুড হাইজিন এন্ড স্যানিটেশন এর উপর কোর্স করেছি। এখন আমি হোটেল রেডিসন ব্ল ‍ুগার্ডেন ঢাকাতে ইটার্নি করছি এবং মনিন বাংলাদেশ থেকে বারিস্তা ট্রেনিং করছি। আর ছায়ার মতো মাকে সবসময় পেয়েছি।

বাবা জালালউদ্দিন বিএডিসির এজিএম ছিলেন। মা লায়লা জালাল, অনেক ভালো রান্না করেন। তার কাছ থেকেই মূলত রান্না শেখা। তা ছাড়া নিজেও রান্না করতে ভালোবাসতেন শৈশব থেকে। বাসায় অতিথি এলে তাদের জন্য নানা ধরনের রান্না করে খাওয়ান। রান্না ভালো লাগায় সুনাম করতেন অতিথিরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিকম পড়াশোনা করেছিলেন। বিয়ে হয়ে গেলে আইনজীবী স্বামী ফজলে আনম চাকরি সূত্রে বগুড়ায় বসবাস করতেন। রান্না করতে গেলে মায়ের টেলিফোন নাম্বারে ফোন করে নতুন রান্না শিখতেন। অাঁকাঅাঁকিতে তার মেয়ে আফরাহ আনাম এর হাত ভালো। মেয়ের অাঁকা ছবিগুলো নিয়ে প্রদর্শনী করার সময় যোগাযোগ হয় বিভিন্ন মিডিয়ার সঙ্গে। মিডিয়ার কয়েকজন জেনে যান, সুমির রান্নায় পারদর্শিতার কথা।
বছরখানেক আগে যমুনা টেলিভিশনে রান্নার অনুষ্ঠান দিয়ে যাত্রা শুরু হয়। ভিন্ন ধরনের রেসিপি নিয়ে অনুষ্ঠান হওয়ায় দ্রুত-ই সাড়া পান।

আফরোজা নাজনিন সুমি বাংলাদেশের সবচেয় বহুল প্রচলিত ও জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা এবং ম্যাগাজিনে তার তৈরী রেসেপি কনট্রিবিউট করেছেন। উল্লেখযোগ্য হলো দৈনিক প্রথম আলো, দি নিউজ এজ, যুগান্তর, ভোরের কাগজ, যায় যায় দিন, মানব কন্ঠ, প্রথম আলো নকশা, প্রথম আলো বনালী খাবার দাবার ম্যাগাজিন, দি পেজেস ম্যাগাজিন, আনন্দ আলো, এটিএন লাইফ স্টাইল, স্পুন ম্যাগাজিন, সাতকাহন , অনন্যা, লুক এট মি, ফুড ও ফান ম্যাগাজিন, হ্যাংলা হ্যাংসেল ম্যাগাজিন (কলকাতার ফুড ম্যাগাজিন) ।

আফরোজা নাজনিন সুমি তার কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ বিভিন্ন সম্মাননায় ভুষিত হয়েছেন। চিত্র জগত এওয়াড ২০১৬, নব প্রজন্মের সেরা রন্ধনশিল্পী এওয়ার্ড ২০১৬, এজেএফবি স্টার এওয়াড ২০১৭ ও ইনডেক্স মিডিয়া এওয়ার্ড ২০১৭ এর তাকে মনোনীত করা হয়েছে।

আফরোজা অারও জানান-‘যমুনা টেলিভিশনে রন্ধনশিল্পী হিসেবে সুযোগ পাওয়া ছিল আমার জন্য পরম সৌভাগ্য। ছোটবেলা থেকে রান্নার প্রতি আমার দুর্বলতা ছিল। যারা খেতেন, প্রশংসা করতেন। কর্তৃপক্ষ আমাকে সুযোগ দেয়ায় তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।’
যমুনা টেলিভিশনে কিছুদিন কাজ করতে আরও কিছু মিডিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ হয়। জিটিভি, চ্যানেল নাইন এবং এটিএন বাংলায় নিয়মিত অনুষ্ঠান করছেন।

তাকে নিয়ে অনুষ্ঠান হয়েছে চ্যানেল নাইন, চ্যানেল ২৪, বাংলা ভিশন, মাছরাঙায় ও স্বদেশ.টিভি। নিয়মিত জাতীয় পত্রিকা ও ম্যাগাজিনে রেসিপি দিয়ে থাকেন। যারা সরাসরি তার কাছ থেকে শিখতে চান, তাদের জন্য ফেসবুকে রয়েছে সুমিজ কিচেন পেইজ এবং ইউটিউবে আফরোজা নাজনীন চ্যানেল।

রন্ধনশিল্পের পাশাপাশি ফটোগ্রাফি করতে ভালোবাসেন। বাংলাদেশ ফটোগ্রাফিক সোসাইটির আজীবন সদস্য হিসেবে বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ নেন। রন্ধনশিল্পীদের সংগঠন উইমেন কালিনারি অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হিসেবে বিভিন্ন কাজ করে থাকেন। মায়ের সঙ্গে বুটিকসের ব্যবসায়ও সময় দেন।
নিয়মিত অনুষ্ঠানের পাশাপাশি এখন রান্নার ওপর একটি বই তৈরি করছেন। আফরোজা নাজনীন সুমি জানান, ‘বর্তমানে রান্নার উপরে একটি ব্যতিক্রমধর্মী বইয়ের কাজ করছি। বইটিতে সহজে করা যায় এমন সব মজাদার রেসিপির পাশাপাশি পাঠকদের জন্য থাকছে কিছু ভিন্ন ধরনের চমক।’
নানাবিধ ব্যস্ততা সত্ত্বেও রান্নায় নিয়মিত দিচ্ছেন। পেয়ে আসছেন স্বামীর সহযোগিতা। ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয় তাকে। মেয়ে আফরাহ আর ছেলে ফায়েজ আবদুল্লাহ জুনায়েদ দুজনই অনেক মেধাবী। স্বামী-সন্তান-সংসার মিলিয়ে নিজের কর্মব্যস্ততার মধ্যেও রান্নার জন্য সময় বের করেন।
_’ছুটির দিনগুলোতেই রান্নার অনুষ্ঠানের শুটিং করে থাকি। আমি নিজে ড্রাইভ করি। আমার স্বামীর সহযোগিতা-ই আমাকে এতদূর নিয়ে এসেছে।’
রন্ধনশিল্পী আফরোজা নাজনীন সুমি নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে জানান, ‘ভবিষ্যতে রেস্টুরেন্ট দেয়ার ইচ্ছা আছে। ইচ্ছা আছে রান্না নিয়ে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার।’

স্বদেশ.টিভির ঈদ স্পেশাল বিশেষ প্রোগ্রাম “স্বদেশ রান্না ঘর” এ জনপ্রিয় রন্ধনশি্ল্পী আফরোজা নাজনিন সুমি

 

 

 

 

 

 

 

 

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ফেইজবুকে আমরা

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
    22232425262728
    2930     
           
      12345
    27282930   
           
          1
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28