Select your Top Menu from wp menus
শুক্রবার, ১৯শে জানুয়ারি ২০১৮ ইং ।। রাত ১:৩৬

বিতর্কের মধ্যেই ডি-লিট উপাধি পেলেন মমতা

আরজে রাফি, নিউজ ডেস্কঃ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সম্মানসূচক ডক্টরেট অব লিটারেচার (ডি-লিট) উপাধি দিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। আজ বৃহস্পতিবার কলকাতার নজরুল মঞ্চে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তাঁকে এই ডিগ্রি দেওয়া হয়। তবে এই উপাধি দেওয়া নিয়ে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে কড়া সমালোচনা।

ডি-লিট উপাধি তুলে দেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি। সাহিত্য, সংস্কৃতি ও সামাজিক ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য মমতাকে এই সম্মান দেওয়া হয়।

পশ্চিমবঙ্গে দ্বিতীয় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে এই ডি লিট পেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে পশ্চিমবঙ্গের প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুকে ২০০৭ সালে ডি-লিট উপাধি দিয়েছিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। তবে সেই সময় জ্যোতি বসু অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন না। পদে থাকাকালীন অবস্থায় কোনো প্রশাসনিক প্রধানকে ডি লিট উপাধি দেওয়া সাধারণত বিরল ঘটনা। ভারতের রাষ্ট্রপতি থাকাকালীন ২০১৪ সালে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়কে ডি-লিট উপাধি দেওয়া হয়েছিল। তারপরই প্রশাসনিক পদে থেকেও ডি-লিট উপাধি পেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ডি-লিট উপাধি পাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘এই সম্মানের যোগ্য আমি নই। এই সম্মান পেয়ে নিজেকে ধন্য মনে করছি। আজকে আপনারা যে সম্মান আমায় দিলেন আর কিছু চাই না জীবনে। আপনারা আমার জীবন পূর্ণ করে দিলেন। এই ডি-লিট উপাধি আমি ব্যবহার করব না, মনের মণি কোঠায় তুলে রাখব। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে সম্মানিত করায় গর্বিত মনে হচ্ছে।’ তিনি বলেন, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের গৌরব। সারা বিশ্ব এক ডাকে চেনে। ভাবিনি এই সম্মান পেয়ে এখানে দাঁড়িয়ে কথা বলতে পারব।

বিতর্ক নিয়ে মমতা আরো বলেন, ‘ আমার জীবনটাই শুধু অবহেলা আর অসম্মানের। আর একটা সম্মান যখন আপনারা দিতে চাচ্ছেন, সেখানেও অসম্মান করা হয়েছে। আমার মনের মধ্যেও একটা দ্বিধা কাজ করছিল, আমি যাব কি যাব না। যেখানে সম্মান পাই না, সেখানে আমি যাই না। শত বাধাতেও আমাকে রোখা যেত না। আমার জীবন লড়াই সংগ্রামের।’

এদিকে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডি-লিট উপাধি দেওয়া নিয়ে এরই মধ্যেই তৈরি হয় বিতর্ক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডি-লিট উপাধি দিলে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য ক্ষুণ্ণ হবে বলে অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেন পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য রঞ্জুগোপাল মুখোপাধ্যায়। গতকাল বুধবার সেই মামলার শুনানি থাকলেও কোনো সুরহা হয়নি।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *