শিরোনাম

চীনে তৈরি হচ্ছে ট্রাম্পের ২০২০ সালের নির্বাচনী পতাকা

| ০৭ জুলাই ২০১৮ | ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ

চীনে তৈরি হচ্ছে ট্রাম্পের ২০২০ সালের নির্বাচনী পতাকা

কয়েক মাস ধরে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্ভাব্য বাণিজ্যযুদ্ধ নিয়ে সরগরম বিশ্ববাজার। এরইমধ্যে জানা গেলো চীনেই তৈরি হচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পুনর্নির্বাচনী প্রচারণার জন্য পতাকা। ওয়াশিংটনভিত্তিক অলাভজনক ন্যাশনাল পাবলিক রেডিওকে (এনপিআর) দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছে পতাকা উৎপাদনকারী একটি প্রতিষ্ঠান। খবর সিএনএনের।

লি জিয়াং নামের একজন কারখানা মালিক এনপিআর-এর দ্য ইন্ডিকেটর প্রোগ্রামকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, চীন বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার অংশ হওয়ার পর থেকে তারা এই পতাকা তৈরির কাজ শুরু করেছেন। তার প্রতিষ্ঠান ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন ও রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য পণ্য সরবরাহ করেছিল।

একজন অনুবাদকের সাহায্যে দেয়া সাক্ষাৎকারে লি বলেন, আমরা ২০২০ সালেও ট্রাম্পের জন্য পতাকা বানাচ্ছি। মনে হচ্ছে তিনি আরও একবার প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হবেন। তাই নয় কী?

তবে ট্রাম্পের জন্য এই পতাকা তৈরি করার বিষয়টি ‘পুরোপুরি স্বাভাবিক’ বলে মন্তব্য করেছেন লি।

লি বলেন, এটা পুরোপুরি স্বাভাবিক একটি ব্যাপার। কেননা এটা বাণিজ্যেরই অংশ। আমরা যুক্তরাষ্ট্র থেকে পণ্য কিনি এবং যুক্তরাষ্ট্র চীন থেকে পণ্য কেনে। যেমন আমার গাড়িটাই তো যুক্তরাষ্ট্রের।

তবে এ ব্যাপারে মন্তব্যের জন্য সিএনএনের পক্ষ থেকে হোয়াইট হাউজের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

চীনের ওপর ট্রাম্প প্রশাসন যে প্রায় ৩৪ বিলিয়ন ডলার পণ্যের ওপর শুল্ক বসিয়েছে সেটি যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় আজ শুক্রবারই কার্যকর হয়েছে। এমনই প্রেক্ষিতে চীনও যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানিকৃত ৩৪ বিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ পণ্যের ওপর শুল্কারোপের হুমকি দিয়েছে।

শিল্প যন্ত্রপাতি, মেডিকেল যন্ত্রপাতি এবং অটো যন্ত্রাংশসহ চীনের আটশ’র বেশি পণ্যের ওপর শুল্কারোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। পাল্টা জবাবে বেইজিংও যুক্তরাষ্ট্রের ৫৪৫টি পণ্যের ওপর শুল্কারোপ করেছে।

গ্রীষ্মের শেষদিকে চীনা পণ্যের ওপর আরও ১৬ বিলিয়ন ডলার শুল্কারোপ করার পরিকল্পনা রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। এদিকে একই পরিমাণ অর্থমূল্যের পণ্যের ওপর শুল্কারোপের হুমকি দিয়ে রেখেছে চীন।

লি আরও বলেন, আমরা বাণিজ্যযুদ্ধ নিয়ে খুব একটা উদ্বিগ্ন নই। কারণ আমাদের পণ্যের দাম কম হওয়ায় প্রতিযোগীদের তুলনায় এমনিতেই আমরা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছি। আর গ্রাহকরাও বেশ স্মার্ট। তারা সবসময় যেখানে কম দামে পণ্য পাওয়া যায় সেখানে যায়। যদি চীন সস্তায় পণ্য দিতে পারে, তাহলে তারা চীনের দিকে ঝুঁকবে। তেমনি যুক্তরাষ্ট্রের পণ্য সস্তা হলে তারা যুক্তরাষ্ট্রের দিকে ঝুঁকবে।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিয়ে করলেন নাবিলা

২৭ এপ্রিল ২০১৮

ফেইজবুকে আমরা

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
    22232425262728
    2930     
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28