শিরোনাম

বিপিএল-এর পর্দা উঠছে আজ চার-ছক্কার বিউগলে শুরু নতুন বছর

| ০৫ জানুয়ারি ২০১৯ | ১:১৫ পূর্বাহ্ণ

বিপিএল-এর পর্দা উঠছে আজ চার-ছক্কার বিউগলে শুরু নতুন বছর

প্রথম কোনো সংসদ সদস্য হিসেবে মাশরাফি বিন মুর্তজা খেলবেন। ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরে এসেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তারকা ক্রিকেটার ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যালেক্স হেলস মাঠে উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছেন। আসার অপেক্ষায় এবি ডি ভিলিয়ার্স ও স্টিভেন স্মিথ। সেই সঙ্গে ক্রিস গেইল, পোলার্ডরাতো আছেনই। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এখন দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের পদচারণায় উৎসবের আমেজ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের নতুন বছর শুরু হচ্ছে চার-ছক্কার বিউগল বাজিয়ে। আজ মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) ৬ষ্ঠ আসর।তবে আগের পাঁচ আসরের তুলনাতে এবার ভিন্ন ভিন্ন কারণে বিপিএল-এ থাকবে বাড়তি উত্তেজনা। উদ্বোধনী দিনে শুরুতেই চ্যাম্পিয়ন মাশরাফির রংপুর রাইডার্স মুখোমুখি হবে মুশফিকুর রহীমের চট্টগ্রাম ভাইকিংসের। দুপুর সাড়ে ১২টায় ম্যাচটি শুরু হবে। এরপর দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সন্ধ্যা ৫.২০ মিনিটে সাকিব আল হাসানের রানার্স আপ ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে আসরে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী কিংস। বিপিএল’র এই আসর নিয়ে দেখা দিয়েছিল শঙ্কা। গেল বছর অক্টোবরে হওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা পিছিয়ে যায় দুই দফা। তবে নতুন বছরের শুরুতে হওয়া নিয়েও ছিল শঙ্কা। মূলত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফাঁদেই পড়েছিল দেশের সবচেয়ে বড় টি- টোয়েন্টির এই টুর্নামেন্ট।
৫ম আসর শুরু হয়েছিল সিলেট থেকে। তবে এবার ফের ঢাকায় মাতিয়ে আসর যাবে সিলেট ও চট্টগ্রামে। সবকিছু ঠিক থাকলে ৮ই ফেব্রুয়ারি মিরপুর মাঠে গড়াবে ফাইনাল। বিপিএল’র যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০১২ সালে। প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয় ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। পরের মওসুমে ২০১৩-তেও চ্যাম্পিয়ন মুকুট হারায়নি অধিনায়ক মাশরাফির দল। তবে সেখান থেকেই গ্রহণ লাগে বিপিএল-এ। ফিক্সিংয়ের বিষবাষ্পে বন্ধ থাকে ২ বছর। তবে ফের ২০১৫-তে মাঠে ফিরে আসে বিপিএল। সেবার ফাইনালে বরিশাল বুলসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় নতুন দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। তাতেই দলটির নেতৃত্ব থাকা মাশরাফির হাতে ওঠে বিপিএল’র টানা তৃতীয় শিরোপা। তবে মালিকানা ও নাম পরিবর্তন করে ঢাকা ডায়নামাইটস অবশ্য সাকিবের নেতৃত্বে প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয় সে বছর। তবে পরের আসরেই ঘুরে দাঁড়ায় তারা। রাজশাহী কিংসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ঢাকা। প্রথম শিরোপা উঠে সাকিবের হাতে। তবে পরের বছরই ২০১৭-তে নয়া দল রংপুর রাইডার্সকে ফের চ্যাম্পিয়ন করেন মাশরাফি। বলতে গেলে পাঁচ আসরের চারটির মুকুট পড়েছে দেশের ওয়ানডে অধিনায়ক ও সেরা পেসার মাশরাফি। এবারও আছেন তবে তার পরিচয়ে এসেছে ভিন্ন মাত্র। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন মাশরাফি। তাই তাকে ঘিরে থাকবে বড় আকর্ষণ।
এই পাঁচ আসরে কয়েকটি দলই বাদ পড়েছে। আবার মালিকানা বদলে ফিরেছেও। এর মধ্যে সিলেট, ও রাজশাহী অন্যতম। তবে বরিশাল বুলস ৫ম আসর থেকে আর খেলতে পারছে না। এবার মোট সাতটি দল অংশ নিচ্ছে। মূলত দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের জন্য এখন বিপিএল অন্যতম আকর্ষণের কেন্দ্র। বিশেষ করে উঠতি ক্রিকেটাররা নিজেদের মেলে ধরতে নিজেদের প্লাটফর্ম মনে করেন। এছাড়াও অভিজ্ঞরাও নিজেদের ব্যাট বলের চমক দেখাতে মরিয়া। বিশেষ করে দেশের তারকা ক্রিকেটারদের জন্য মার্যাদার লড়াইও। এখন পর্যন্ত শেষ পাঁচ আসরে বিভিন্ন দলের হয়ে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ রানের মালিক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। খুলনার এই অধিনায়ক এবারও নিজের সেরাটা দিয়ে লড়বেন সেই প্রত্যাশা সবার। এখন পর্যন্ত তার ব্যাট থেকে এসেছে ৬৩ ম্যাচে ৭ ফিফটিতে ১৪০০ রান। তারপরেই আছেন ৪৪ ম্যাচে ১৪ ফিফটিতে তামিমের ১৩৫৮ রান। তারপরই মুশফিকুর রহীমের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৮ ম্যাচে তামিমের চেয়ে মাত্র ১ রান কম। হাজার রানের তালিকাতে চতুর্থ স্থানে সাকিব আল হাসান, ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয়, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন। তবে এই তালিকাতে দু’জন বিদেশি তারা হলেন টি-টোয়েন্টি দানব ক্রিস গেইল ও আরেক ক্যারিবীয় মারলন স্যামুয়েলস। এছাড়াও এই আসরের সর্বোচ্চ ৮৩ উইকেটের মালিক সাকিব। তবে তারপরের স্থানটি কেভন কুপারের, তিনি নিয়েছেন ৬৩ উইকেট। এই দু’জনের পর তৃতীয় স্থানে ৫৪ উইকেট নিয়ে আছেন শফিউল ইসলাম ও চতুর্থ স্থানে ৫১ উইকেট নিয়ে মাশরাফি বিন মুর্তজা। ৫০ উইকেট শিকারের তালিকাতে ৫ম স্থানে আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। অন্যদিকে শেষ আসরে ৫ জন বিদেশি ক্রিকেটার খেলানোর বিতর্কিত সিদ্ধান্ত থেকে এবার বের হয়ে এসেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এই আসরে সর্বোচ্চ চারজন বিদেশি খেলতে পারবেন প্রত্যেক একাদশে।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিয়ে করলেন নাবিলা

২৭ এপ্রিল ২০১৮

ফেইজবুকে আমরা

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
    15161718192021
    22232425262728
    2930     
           
      12345
    27282930   
           
          1
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28