শিরোনাম

সংসদ বসছে ৩০শে জানুয়ারি, বিরোধী নেতা-উপনেতার প্রজ্ঞাপন জারি

| ১০ জানুয়ারি ২০১৯ | ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

সংসদ বসছে ৩০শে জানুয়ারি, বিরোধী নেতা-উপনেতার প্রজ্ঞাপন জারি

একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন আগামী ৩০শে জানুয়ারি শুরু হবে। ওইদিন বিকাল ৩টায় বসছে সংসদ অধিবেশন। নতুন সংসদের প্রথম এ বৈঠকে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন করা হবে। এ ছাড়া সংসদের প্রথম ও নতুন বছরের প্রথম অধিবেশন হিসেবে এর প্রথম দিনে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ ভাষণ দেবেন। গতকাল প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ তার সাংবিধানিক ক্ষমতা বলে এই অধিবেশন আহ্বান করেন। নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের গেজেট প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যে প্রথম অধিবেশন শুরুর সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ৩০শে ডিসেম্বর নির্বাচনের পর গত ১লা জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ীদের গেজেট প্রকাশ করা হয়। পরে ৩রা জানুয়ারি নির্বাচিত এমপিরা শপথ নেন।

নির্বাচনে বিজয়ী বিএনপির পাঁচজন ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দু’জন এখনো শপথ নেননি।সংবিধানের বিধান অনুসারে প্রথম বৈঠকের দিন থেকে ৯০ দিনের মধ্যে কোনো নির্বাচিত সদস্য শপথ না নিলে পদ শূন্য হয়ে যাবে। পরে সেখানে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার নির্বাচন করবে সংসদ। বর্তমান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীই নতুন স্পিকার হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হবেন এটা মোটামুটি নিশ্চিত। সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, স্পিকার নির্বাচনের পর সংসদ সাময়িক সময়ের জন্য মুলতবি ঘোষণা করা হবে। এ সময় প্রেসিডেন্ট নতুন স্পিকারকে শপথ পড়াবেন। পরে নতুন স্পিকারের সভাপতিত্বে আবারও বসবে অধিবেশন। ওই সময় প্রেসিডেন্ট ভাষণ দেবেন। তার ভাষণের পর প্রথমদিনের কার্যক্রম সমাপ্ত হবে। পরে এই ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর এমপিরা দীর্ঘ বক্তব্য রাখবেন। সংসদের প্রথম বা বছরের প্রথম অধিবেশন সাধারণত দীর্ঘ হয়।

বিরোধী দলের নেতা-উপনেতার প্রজ্ঞাপন: এদিকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে বিরোধী দলীয় নেতা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়। একইসঙ্গে প্রজ্ঞাপনে জিএম কাদেরকে বিরোধী দলের উপনেতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এর আগে গত ৫ই জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদে মহাজোটের অংশীদার জাতীয় পার্টিকে (জাপা) বিরোধী দল ঘোষণা দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে স্পিকারকে চিঠি দেন দলটির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। ওই চিঠিতে এরশাদ বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদে আপনি স্পিকারের দায়িত্ব গ্রহণ করায় প্রথমেই আপনাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।

আপনি অবগত আছেন যে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার জাতীয় পার্টি ২২টি আসনে বিজয় লাভ করে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল তথা প্রধান বিরোধী দলের মর্যাদা লাভ করেছে। নির্বাচনের এই ফলাফলের পরিপ্রেক্ষিতে পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দলের গঠনতান্ত্রিকভাবে পদাধিকার বলে আমি জাতীয় পার্টির পার্লামেন্টারি পার্টিরও সভাপতি। এই প্রেক্ষাপটে আমি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ (রংপুর-৩) প্রধান বিরোধী দলীয় নেতা এবং পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের (লালমনিরহাট-৩) বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য দলীয়ভাবে সিদ্ধান্দ গ্রহণ করেছি।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিয়ে করলেন নাবিলা

২৭ এপ্রিল ২০১৮

ফেইজবুকে আমরা

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
          1
    16171819202122
    23242526272829
    3031     
          1
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28