শিরোনাম

ড়াইলে কৃষককে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার-১

| ০৯ এপ্রিল ২০১৯ | ২:৩৩ অপরাহ্ণ

ড়াইলে কৃষককে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার-১

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি■ (৯ এপ্রিল) ২৭৪ ॥ দূরসম্পর্কের আত্মীয়তার সূত্র ধরে নড়াইলের ধোন্দা গ্রামের কৃষক আকমল শেখকে (৫০) অপহরণের অভিযোগে লুৎফর রহমানকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)। লুৎফর পঞ্চগড়ের বোদা থানার পাঁচপির মেলাগ্রামের আছির উদ্দিনের ছেলে। পুলিশ সুপার জানান, ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে নড়াইল সদর উপজেলার ধোন্দা গ্রামের আকমল শেখ অপহরণ মামলার আসামি লুৎফরকে গত রোববার (৭ এপ্রিল) পঞ্চগড়ের নিজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ অপহরণের ঘটনায় আটজনের সম্পৃক্ততার তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। জানা যায়, দুরসম্পর্কের আত্মীয়তার সূত্র ধরে নড়াইলের ধোন্দা গ্রামের কৃষক আকমল শেখের বাড়িতে পাঁচ বছর ধরে আসা-যাওয়া করেন অপহরণের মূলহোতা আনিস (৪৫)। পরিচয়ের শুরুতেই আনিস বাড়ির ঠিকানা দেয় রংপুর। পাঁচ বছরের মধ্যে আকমলদের বাড়িতে আনিস বেড়াতে এসেছেন অনেকবার। এছাড়া মোবাইল ফোনেও যোগাযোগ হত তাদের। সেই ঘনিষ্ঠ লোকটিই (আনিস) গত ২৯ মার্চ আকমলকে অপহরণ করে। আকমল শেখের স্ত্রী পলি বেগম বলেন, প্রায় পাঁচ বছর আগে আনিস তার এক দুলাভাইয়ের সন্ধানে আসেন আমাদের এলাকায়। সেই সময় আমার স্বামীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে আনিস অনেকবার আমাদের বাড়িতে বেড়াতে আসলেও আমরা তার (আনিস) বাড়িতে বেড়াতে যাইনি। বারবার অনুরোধের প্রেক্ষিতে গত ২৯ মার্চ আমার স্বামী (আকমল) নড়াইল থেকে আনিসদের বাড়ি রংপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হন। আনিসদের এলাকায় পৌঁছানোর পর বুঝতে পারেন ফাঁদে পড়েছেন তিনি। এক পর্যায়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমার কাছে ২০ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারীরা। প্রাথমিক পর্যায়ে গত ৩০ মার্চ সন্ধ্যা ৭টার দিকে বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা পাঠাই। এরপর বিষয়টি পুলিশকে জানালে নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন আমার স্বামীকে উদ্ধারে তৎপর হন। গত ৩১ মার্চ পঞ্চগড়ের বোদা থানার বৈরতি গ্রাম থেকে আমার স্বামীকে উদ্ধার করে নড়াইল পুলিশ। আকমল শেখ বলেন, গত ২৯ মার্চ যশোর থেকে ট্রেনে চড়ে রংপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার পর মোবাইল ফোনে কথা হয় আনিসের সঙ্গে। পরেরদিন (৩০ মার্চ) সকালে লালমনিরহাট পৌঁছালে আনিস আমাকে মোটরসাইকেলে উঠিয়ে পথ চলতে থাকে। অনেক পথ পাড়ি দেয়ার পর জানতে পারি, রংপুরে নয়; আমাকে পঞ্চগড়ে নিয়ে আসা হয়েছে। এক পর্যায়ে আনিস তার কথিত বোনের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর ছোট টিনের ঘরের মধ্যে কয়েকজন আমাকে রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে এবং মারধর করে। এ সময় মোবাইল ফোনে ২০ লাখ টাকা দাবি করে। এরপর আমার পরিবারকে ১০ লাখ, পাঁচ লাখ, সবশেষে তিন লাখ টাকা দেয়ার কথা বলে অপহরণকারীরা। এভাবে দুরসম্পর্কের আত্মীয়তার সূত্র ধরে আমার মতো ভুল যেন কেউ না করেন। নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার),এ প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, ‘প্রযুক্তির মাধ্যমে অপহরণকারীদের অবস্থান সনাক্ত করে অপহৃত আকমলকে পঞ্চগড় থেকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশের তৎপরতা টের পেয়ে অপহরণকারীরা সেই সময় সটকে পড়লেও গত রোববার (৭ এপ্রিল) একজনকে গ্রেফতার করেছি। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’এ বিষয়ে প্রেসব্রিফিংয়ে সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) শরফুদ্দীন, সহকারী পুলিশ সুপার (কালিয়া অঞ্চল) রিপন চন্দ্র সরকার, সহকারী পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন, নড়াইল সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইলিয়াস হোসেন (পিপিএম), নড়াইল জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আশিকুর রহমান, ডিআইও-১ এস এম ইকবাল হোসেন। এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মো.শাহীদুল ইসলাম শাহী, নড়াইল প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সুলতান মাহমুদ, নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যাসহ ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। জেলা পুলিশের কর্মকর্তা। উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি■ ছবি সংযু

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ফেইজবুকে আমরা

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
      12345
    20212223242526
    27282930   
           
          1
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28