তেহরানে বিস্ফোরণের উৎস ও কারণ লুকিয়েছে ইরান!

গত ২৬ জুন ইরানের রাজধানী তেহরান প্রচণ্ড বিস্ফোরনের শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পরে। স্থানীয়রা শব্দের উৎস নিয়েও পরে যান দ্বিধাদ্ব›েদ্ব। সন্দেহের কারণ আরো ঘনিভুত হয় যখন জানা যায় বিস্ফোরনের উৎস ছিল একটি সামরিক ঘাটির বাইরে। এ নিয়ে অনুসন্ধান চালিয়েছে সৌদি আরবভিত্তিক গণমাধ্যম আরব নিউজ। প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে আরব নিউজ দাবি করেছে, ইরান সরকার ওই বিস্ফোরণ সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য প্রদান করে থাকতে পারে।
বিস্ফোরনের পর ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে এসে জানান, একটি ছোটখাট গ্যাস দূর্ঘটনার কারণে এই বিস্ফোরন ঘটেছে। ঘটনাস্থল ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছেই থাকা পারচিন মিলিটারি কমপ্লেক্স। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে পরেন দেশটির জনগণ।

অনেকেই আশঙ্কা করেন গ্যাস দূর্ঘটনা নয়, বিস্ফোরনের কারণ গোপন কোনো সামরিক পরীক্ষা।
তবে ঘটনার পরেই দেশটির সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পরে যে দূর্ঘটনার আসলে উৎস হচ্ছে তেহরানের আরেকটি সামরিক ঘাঁটি খোজিরে। ওয়াশিংটনভিত্তিক অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক একটি সংস্থার বিশ্লেষক স্যামুয়েল হিকিও একই কথা জানান। তিনি বলেন, স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া তথ্যমতে খোজির সামরিক ঘাটিতেই ওই বিস্ফোরন হয়েছে তা নিশ্চিত। এটি একটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদনের ঘাঁটি। ইরান যে স্থানের কথা বলেছে সেখানে বিস্ফোরণ ঘটেনি কোনো। তবে তেহরান কেনো এমন মিথ্যা তথ্য দেবে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন হিকি। আরব নিউজ প্রতিবেদনে লিখেছে, এ থেকে আশঙ্কা করা হচ্ছে ইরান হয়ত কোনো স্পর্শকাতর তথ্য লুকানোর চেষ্টা করছে। এ জন্য বিস্ফোরনের স্থান সম্পর্কে ভুল তথ্য দিচ্ছে দেশটি। খোজিরে হয়ত কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ন কোনো অস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়েছে। এমনকি পরমানু বোমা নির্মানের দিকেও আক্সগুল তোলা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.