ক্রিকেটারদের পাওনা পরিশোধের উদ্যোগ সিসিডিএমের

দেশে সব ধরণের ক্রীড়া আসর বন্ধ রয়েছে মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে। চলতি মৌসুমের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) শুরু হবার পর প্রথম রাউন্ড শেষেই দেশে করোনার হানা, তাই স্থগিত করে দেয়া হয় মৌসুমের বাকি অংশ।

দেশের এই ঘরোয়া লিগগুলোই অধিকাংশ ক্রিকেটারের রুটি-রুজির উৎস। কিন্তু এভাবে খেলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্লাবগুলোও পাওনা পরিশোধ করেননি ঠিকঠাক। এতে বিপাকে পড়েছেন ক্রিকেটাররা।
তাই গতকাল মঙ্গলবার ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের (কোয়াব) বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে উক্ত সমস্যা নিয়ে বিসিবির সঙ্গে আলোচনার বসার।
কোয়াবের অনলাইন সভায় কোয়াব সদস্য এবং ক্রিকেটারদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সিসিডিএম প্রধান কাজী ইনাম আহমেদ। আজ তিনি জানিয়েছেন, পরিস্থিতি খেলার উপযুক্ত হলে অল্প সময়ের মধ্যেই মাঠে ফিরবে ডিপিএল।
তবে ক্রিকেটারদের পাওনা পারিশ্রমিক পরিশোধের ব্যাপারে ক্লাবগুলোকে তাগাদা দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
‘গতকাল আমি কোয়াবের সঙ্গে একটি সভায় উপস্থিত ছিলাম যেখানে জাতীয় দল এবং প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটাররাও ছিলেন। আমরা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) কিভাবে শুরু করা যায় তা নিয়ে কথা বলেছি। এখনই অবশ্য আমরা টুর্নামেন্ট শুরুর দিনক্ষণ নিশ্চিত করতে পারছি না। ক্লাবগুলোর প্রস্তুত থাকা উচিত কারণ পরিস্থিতি খেলার উপযুক্ত হওয়া মাত্রই ১৫ দিনের সংক্ষিপ্ত বিজ্ঞপ্তিতে লিগ শুরু হবে। ব্রাদার্স ইউনিয়ন এবং পারটেক্সের ক্রিকেটাররা তাদের পাওনা পারিশ্রমিক পায়নি বলে আমাদের কাছে অভিযোগ এসেছে। ইতোমধ্যেই ক্লাবগুলোকে সিসিডিএমের পক্ষ থেকে ক্রিকেটারদের পাওনা টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়েছে।‘
পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক না হলে খেলা আদৌ শুরু হবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। করোনাকালীন সময়ে মাঠের খেলা চালু করতে হলে যেসব সুযোগ-সুবিধা এবং নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা, প্রয়োজনে সেসবের পরিকল্পনা করা এবং বাস্তবায়ন করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.