‘নদী ভাঙনে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে’

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেছেন, নদী ভাঙন রোধে জরুরি ভিত্তিতে কাজের পাশাপাশি আগামীতে যেন আর নদী ভাঙন না হয় সে বিষয়ে কার্যকরী প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। তিনি আজ সকালে যমুনা নদীর ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সিমলা-পাঁচঠাকুরী এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, যমুনা নদীর অব্যাহত পানি বৃদ্ধি ও ডুবোচর দেখা দেয়ায় নদীর গতিপথ পরিবর্তন হয়ে এই ভাঙন দেখা দিয়েছে। পানি কমে গেলে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে এই ডুবোচর গুলি অপসারণ করা হলে ক্ষতির সম্ভাবনা কম থাকবে।

আগে যে স্পারগুলি নির্মাণ করা হয়েছিলো সেগুলো নিম্ন মানের উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, এখন যে স্পারগুলি নির্মাণ করা হচ্ছে তা অনেক উন্নত মানের। তিনি বলেন, সিরাজগঞ্জে নদীর তীরের ৮০ কিলেমিটারের মধ্যে ৬৭ কিলোমিটারের তীর সংরক্ষণ বাঁধের কাজ শেষ হয়েছে। আগামী অর্থ বছরে বাকি ১৩ কিলোমিটার নদী তীর সংরক্ষণণ বাঁধের কাজ শুরু হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন, আর এই কাজ শেষ হলে সিরাজগঞ্জের মানুষ বন্যায় আর ক্ষতিগ্রস্ত হবে না বলে তিনি জানান। পরে তিনি নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক ড.ফারুক আহাম্মদ, পানি উন্নয়ন বোর্ডেও নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার অসিম কুমার,মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. জান্নাত আরা হেনরী, ছোনগাছা ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল আলম উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.