শিরোনাম

অনিচ্ছাকৃতভাবে বিমান ভূপাতিত করেছে ইরান, ক্ষমা প্রার্থনা

| ১১ জানুয়ারি ২০২০ | ৮:২০ অপরাহ্ণ

অনিচ্ছাকৃতভাবে বিমান ভূপাতিত করেছে ইরান, ক্ষমা প্রার্থনা

ইউক্রেনের যাত্রীবাহী জেট বিমান অনিচ্ছাকৃতভাবে ভূপাতিত করার কথা স্বীকার করেছে ইরানের সেনাবাহিনী। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভাদ জারিফ শনিবার এক ট্ইুটে বলেছেন, মানবিক ভুলে এবং যুক্তরাষ্ট্রের এডভেঞ্চারিজমের কারণে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তিনি একে একটি বেদনার দিন বলে আখ্যায়িত করেন। বলেন, সশস্ত্র বাহিনীর আভ্যন্তরীণ তদন্তের প্রাথমিক সারসংক্ষেপ পাওয়া গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের এডভেঞ্চারিজমে সৃষ্ট বিপর্যয়ের ফলে ওই সময় মানবিক ত্রুটি দেখা দেয়। তিনি এ সময় নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তাদের ও তাদের পরিবার পরিজনের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ক্ষমা প্রার্থনা করেন ক্ষতিগ্রস্ত সব দেশের কাছে।

কুদস ফোর্সের প্রয়াত প্রধান কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার পর উত্তেজনাপূর্ণ এক সময়ে ওই বিমানটি ভূপাতিত করায় কমপক্ষে ১৭৬ জন নিহত হন। এর মধ্যে বেশির ভাগই ইরানি নাগরিক।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন, টুইটারকে উদ্ধৃতি দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে অনলাইন বিবিসি ও বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়েছে, ইরানের রেভ্যুলুশনারি গার্ডের স্পর্শকাতর স্থাপনার খুব কাছ দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল বিমানটি। এ সময় মানবসৃষ্ট ভুলে তা ভূপাতিত করা হয়েছে। বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার পর এর ব্লাকবক্স কারো কাছে হস্তান্তরে অস্বীকৃতি জানায় ইরান। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো সহ পশ্চিমা নেতারা বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার জন্য ইরানের দিকে আঙ্গুল তোলেন। ইরানের ওপর চাপ বৃদ্ধি পেতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন থেকে ওই বিবৃতি দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, বুধবার ইরানের রাজধানী তেহরান থেকে ১৭৬ জন আরোহী নিয়ে উড্ডয়ন করে ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট পিএস৭৫২। এর মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে ইরাকে মার্কিন দুটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। এর পর পরই ওই বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার খবরে চারদিকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিমানটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ হয়ে যাওয়ার কথা ছিল কানাডার টরোন্টোতে। মার্কিন মিডিয়ায় সংশয় প্রকাশ করা হয় যে, বিমানটিকে ইরান শত্রুপক্ষের যুদ্ধবিমান মনে করে গুলি করে থাকতে পারে। তারা মনে করেছে, মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে হামলার প্রতিশোধ নিতে যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছে।

ওদিকে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ইরান। তবে বিধ্বস্ত বিমানের ধ্বংসাবশেষ একটি মেকানিক্যাল ডিগার দিয়ে সরিয়ে ফেলতে দেখা যায়। এতে উদ্বেগ দেখা দেয় যে, গুরুত্বপূর্ণ তথ্যপ্রমাণ সরিয়ে ফেলা হচ্ছে।

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিয়ে করলেন নাবিলা

২৭ এপ্রিল ২০১৮

  • পুরনো সংখ্যা

    SatSunMonTueWedThuFri
        123
    25262728293031
           
      12345
    27282930   
           
          1
           
          1
    9101112131415
    30      
         12
           
          1
    2345678
    30      
       1234
    262728293031 
           
         12
           
      12345
    2728293031  
           
    891011121314
    2930     
           
        123
           
        123
    25262728   
           
    28293031   
           
          1
    2345678
    9101112131415
    3031     
          1
    30      
      12345
    272829    
           
        123
           
    28