1. ccadminrafi@gmail.com : Writer Admin : Writer Admin
  2. 123junayedahmed@gmail.com : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর
  3. swadesh.tv24@gmail.com : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম
  4. swadeshnews24@gmail.com : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর: : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:
  5. hamim_ovi@gmail.com : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
  6. rifatkabir582@gmail.com : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান
  7. skhshadi@gmail.com : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান: : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান:
  8. srahmanbd@gmail.com : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
গরমে চাঙ্গা ফ্যান-এসির বাজার - Swadeshnews24.com
শিরোনাম
যে ভয়ে দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর সিনেমা ফিরিয়ে দেন মাহি ভারতে গিয়ে আমি এই সরকারকে টিকিয়ে রাখতে বলেছি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী সন্দেহ সব শেষ করে দেয় তেল চিটচিটে কেবিনেট পরিষ্কারের উপায় গ্রিলড বা ঝলসানো মাংস ও ক্যান্সার নিয়ে বিজ্ঞান কী বলে? কাঁধ ভালো রাখতে যেসব ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ পোশাক পরিধানে ইসলামের নীতিমালা যুবলীগ নেতা সাইফুলের নেতৃত্বে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল তেলাপিয়া,পাঙাশ মাছও এখন ২০০ টাকা কেজি চোখর ভেতরে লাল দাগ? হতে পারে রোগের লক্ষণ প্রতিবেশীকে সহযোগিতা করার পুরস্কার জান্নাত যে কারণে সাংবাদিকতায় ভর্তি হলেন দীঘি ক্রিমিয়ার বিস্ফোরণের বিষয় যা বলল রাশিয়া গার্ডারচাপায় নিহত ৪ জনের দাফন সম্পন্ন উত্তরায় প্রাইভেটকারে গার্ডার: ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট

গরমে চাঙ্গা ফ্যান-এসির বাজার

  • Update Time : রবিবার, ২৪ জুলাই, ২০২২
  • ৮৪ Time View

কয়েক দিনের টানা তীব্র তাপপ্রবাহে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। তাই এ গরমে শীতাতপ নিয়ন্ত্রক যন্ত্র (এসি) এবং এয়ারকুলারের বিক্রি বেড়েছে। পাশাপাশি সিলিং ফ্যান, টেবিল ফ্যান ও চার্জার ফ্যানেরও বিক্রি বেড়েছে। প্রায় প্রত্যেকটি ব্র্যান্ডের এসিতে চলছে আকর্ষণীয় ছাড়।

 

নগদ কেনার ক্ষেত্রে এসিতে চলছে ১০ থেকে ১৭ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট। একই সঙ্গে বিশাল ছাড়ে গ্রাহকদের পুরনো এসি পাল্টে নতুন এসি কেনারও সুযোগ দিয়েছে কম্পানিগুলো।

 

বিক্রেতারা বলছে, অস্বস্তিকর গরমে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও ঘর ঠাণ্ডা রাখতে এখন এসি কিনতে আসছে ক্রেতারা। মধ্যবিত্তরাও এখন কিস্তিতে এসি কিনে নিচ্ছে। যাদের এসি কেনার সামর্থ্য নেই তারা এয়ারকুলার কিনে নিচ্ছে।

গতকাল সোমবার সরেজমিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ইলেকট্রনিকসের দোকান ও দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের এসির শোরুম ঘুরে ও বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

রাজধানীর বাড্ডা প্রগতি সরণি ওয়ালটন শোরুমের ম্যানেজার মোস্তফা কামাল (সোহাগ) কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘তাপপ্রবাহের কারণে এসি ও ফ্যানের বিক্রি ৫০ শতাংশের বেশি বেড়েছে। গত জুন মাসে এই শোরুম থেকে ২০টি এসি বিক্রি হয়েছিল। ঈদের ছুটির পর চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গত চার দিনেই ১০টা এসি বিক্রি হয়েছে। সিলিং ফ্যান, টেবিল ফ্যান, ও চার্জার ফ্যানের বিক্রিও কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। প্রতিদিনই ক্রেতারা শোরুমগুলোতে এসে এসি দরদাম জেনে যাচ্ছে। ’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে এক টনের ওয়ালটন এসি সর্বনিম্ন ৪১ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে এবং দুই টনের এসি সর্বোচ্চ ৮২ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ওয়ালটনের যেকোনো এসি কিনলে ১০ থেকে ১২ শতাংশ পর্যন্ত নগদ ছাড় রয়েছে। পুরনা এসি পাল্টে ২৫ শতাংশ ডিসকাউন্ট সুবিধায় নতুন এসি নেওয়ার সুযোগও রয়েছে। ’

মোস্তফা কামাল আরো বলেন, ‘আগে মধ্যবিত্ত শ্রেণি মানুষ এয়ারকুলারের প্রতি আকৃষ্ট ছিল। কিন্তু এবারের গরমে এয়ারকুলারে নজর কম। কারণ এসির দাম মধ্যবিত্তের সামর্থ্যের মধ্যে আসার কারণে তারাও এসির ব্যবহারে

ঝুঁকছে। ’

ওয়ালটন শোরুমে এসি দেখতে আসা রামপুরার ক্রেতা আবু বক্কর সিদ্দিক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাসায় এসি ব্যবহার করব সেটা গত মাসেও আমাকে ভাবতে হয়নি। এবার যে ভ্যাপসা গরম শুরু হয়েছে, রাতে ঘুমালে মনে হয় ফ্যানের বাতাস থেকেও আগুন বের হচ্ছে। তাই

কিস্তিতে একটি এক টনের এসি নেওয়ার জন্য এসেছি। ’

রাজধানীর মধ্যবাড্ডার জেকে ইলেকট্রনিকসের দোকানে ক্রেতার সমাগম দেখা গেছে। এই দোকানে সিলিং ফ্যান ব্র্যান্ডভেদে ১৮০০ থেকে ৩৫০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। টেবিল ফ্যান ৭০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। চার্জার ফ্যান ২৬০০ থেকে ৩৫০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এয়ারকুলার ৬৫০০ থেকে ২০,০০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

এই দোকানের ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গরমের কারণে গত এক মাস ধরেই এয়ারকুলার, চার্জার ফ্যান ও টেবিল ফ্যান বিক্রি ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ বেড়েছে। এসব ইলেকট্রিক পণ্যের চাহিদা বাড়ায় দামও কিছু বাড়িয়ে দিয়েছে উৎপাদনকারী কম্পানিগুলো। প্রত্যেকটি পণ্যে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত দাম বেড়েছে। ’

গরমে মিনিস্টার এসিতে চলছে আকর্ষণীয় ছাড়। নগদ কেনার ক্ষেত্রে এসিতে চলছে ১৭ শতাংশ ডিসকাউন্ট। একই সঙ্গে গ্রাহক পুরনো এসি পাল্টে মিনিস্টার নতুন এসি কিনতে পারবেন। সঙ্গে থাকছে ৩০ শতাংশ মূল্যছাড়।

জানতে চাইলে মিনিস্টার মাইওয়ান গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. জাহিদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাজারে এখন এসির প্রচুর চাহিদা। গত বছরের তুলনায় আমাদের এসি বিক্রিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৫০ শতাংশ। গত দেড় মাসেই আমরা তিন হাজারের বেশি এসি বিক্রি করতে পেরেছি। এসির মধ্যে ৯০ শতাংশ বিক্রি হয়েছে নন-ইনভার্টার এবং ১০ শতাংশ বিক্রি হয়েছে ইনভার্টার। বাজারে এখন মিনিস্টার এসি সর্বনিম্ন ৪০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৮০ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এসি বিক্রির পাশাপাশি মিনিস্টার ফ্যানের বিক্রিও বেড়েছে। ’

মধ্যবাড্ডার ট্রান্সকম ইলেকট্রনিকস শোরুমে ট্রান্সটেক, ওয়ার্লপুল, স্যামসাংয়ের ফ্রিজ ও এসি বিক্রি করা হয়। এসির বিক্রি বেড়েছে বলে জানালেন এই শোরুমটির সহকারী ম্যানেজার মো. হেলাল উদ্দিন আজাদও। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঈদের পর এসির চাহিদা বেড়েছে। মাত্র চার দিনেই ১১টি এসি বিক্রি হয়েছে, যা পুরো জুন মাসে বিক্রি হয়েছিল ১৭টি এসি। ’

ওই এলাকার স্যামসাং শোরুমের আউটলেট ম্যানেজার মো. রবিউল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গত দু-তিন মাসের তুলনায় এখন এসি বিক্রি বেড়েছে। অতিরিক্ত গরমের কারণে এখন ক্রেতারা শোরুমে এসি কিনতে আসছে। অনেকে দরদাম দেখে যাচ্ছে, পরবর্তী সময়ে এসে কিনে নেবেন বলেও কথা বলে যাচ্ছে। স্যামসাংয়ের প্রত্যেকটি এসিতে ১০০০ থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত নগদ ছাড় রয়েছে। বাজারে এখন স্যামসাং এসি সর্বনিম্ন ৬৮ হাজার ৯০০ টাকায় এবং সর্বোচ্চ ৯৬ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ’ তিনি বলেন, ‘দেশি কম্পানির এসির দাম আমাদের ব্র্যান্ডের তুলনায় কম। মানুষের এখন আয়ের তুলনায় ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় কম দামের এসিই বেশি কিনছে। ’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 SwadeshNews24
Site Customized By NewsTech.Com