1. ccadminrafi@gmail.com : Writer Admin : Writer Admin
  2. 123junayedahmed@gmail.com : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর
  3. swadesh.tv24@gmail.com : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম
  4. swadeshnews24@gmail.com : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর: : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:
  5. hamim_ovi@gmail.com : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
  6. rifatkabir582@gmail.com : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান
  7. skhshadi@gmail.com : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান: : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান:
  8. srahmanbd@gmail.com : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
এবার রাজধানীতে নারী সাংবাদিককে গণধর্ষণ - Swadeshnews24.com
শিরোনাম
মুক্তিযোদ্ধা বাবাকে হেলিকপ্টারে পদ্মা সেতু দেখালেন অভিনেতা মক্কায় সামরিক বাহিনীর মহড়া ট্রেন থেকে পড়ে আহত শিশুর পরিবারের সন্ধান মেলেনি ইঞ্জিন বিকল হয়ে ভাসতে থাকা ৫ জেলেকে উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড ‘খুবই ভালো ব্যাটিং করেছেন সাকিব’ রুশ সেনাদের গুরুত্বপূর্ণ রেল ব্রিজে বোমা হামলা পানের বরজ ঘেরাও করে ৪ ডাকাত গ্রেফতার বন্যাদুর্গতদের পাশে ‘নটরডেমিয়ান ৯৯’ মিতু হত্যা: দুই সন্তানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পিবিআই ঈদে বাড়ি ফিরতে মানতে হবে ১২ নির্দেশনা রোজা আফরোজার ডিজাইনে লোরাটো’র জাঁক-জমক ফ্যাশন শো অনুষ্ঠিত ওয়াকারের বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ ঈদে মিলন মাহমুদের ‘মনের মানুষ’ মূল্যস্ফীতি সামাল দিতে সংকোচনমুখী মুদ্রানীতি সৌদি পৌঁছেছেন প্রায় ৫৭ হাজার হজযাত্রী, ১২ জনের মৃত্যু

এবার রাজধানীতে নারী সাংবাদিককে গণধর্ষণ

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৩ মে, ২০১৪
  • ৩২৩ Time View

Rape
ডেস্ক রিপোর্ট: রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী সাংবাদিক। গণধর্ষণের শিকার ওই সাংবাদিক একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের স্টাফ রিপোর্টার বলে জানা গেছে। সোমবার রাত ১১টার দিকে উদ্যানের তিন নেতার মাজারের পেছনে প্রেমিক ও তার সাত বন্ধু মিলে ওই নারী সাংবাদিককে গণধর্ষণ করে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই তরুণীকে তার প্রেমিক সেখানে নিয়ে যায় বলে জানা গেছে।

ঘটনায় প্রতারক প্রেমিক নাঈমসহ অজ্ঞাত পাঁচজনকে আসামি করে শাহবাগ থানায় মামলা করেছেন ধর্ষণের শিকার ওই নারী সাংবাদিক। তবে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম। মামলায় আসামিরা হলেন, নাঈম (প্রেমিক), শাহীন, রুবেল, ইমরান, হাবিব। ধর্ষণকারীদের মধ্যে কয়েকজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ আলী বলেন, গতকাল (সোমবার) রাত সাড়ে ১২টার দিকে যখন ক্যাম্পাস পরিদর্শন করছিলাম তখন তিন নেতার মাজারের পাশে এক তরুণীকে কয়েকজন ছেলে জেরা করতেছিল। তিনি বলেন, এ সময় তরুণীটি রিকশায় ছিল। পরে যখন আমাদের গাড়িটি রিকশার কাছে এসে দাঁড়ায় তখন ছেলেগুলো আমাকে দেখে উদ্যানের ভেতরে পালিয়ে যায়। আমরা অনেকক্ষণ অপেক্ষা করার পরেও ছেলেগুলোকে আর পাওয়া যায়নি। তিনি আরো বলেন, ‘এ থেকে বোঝা যায় ছেলেগুলো আমাকে চেনে এবং তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরই শিক্ষার্থী’।

এদিকে শাহবাগ থানার তদন্ত কর্মকর্তা হাবিল জানান, ‘ধর্ষণের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জড়িত থাকতে পারে’। সূত্র জানায়, শরিয়তপুরের ওই তরুণী রাজধানীর হাজারীবাগে থাকতো। গত ১০ দিন আগে তার সঙ্গে নাঈম (২৭) নামে এক তরুণের পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের পর থেকে গত কয়েকদিন ধরেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গ্লাস টাওয়ারের সামনে তারা দেখা করতো। অন্যান্য দিনের মত গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই তরুণীকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ডেকে আনে নাঈম। আড্ডা গল্পের নামে রাত ১১টা পর্যন্ত কালক্ষেপণ করে সে। পরে শাহীন, রুবেল, ইমরান, হাবিব নামে কয়েকন বন্ধু ছাড়াও অজ্ঞাত আরো কয়েকজন যুবক নাঈমের সঙ্গে যোগ দেয়। নাঈম তাদেরকে তার বন্ধু ও বিবাহের সাক্ষী বলে পরিচয় করিয়ে দেয়। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই ঘটনা ভিন্ন দিকে মোড় নেয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে জাতীয় তিন নেতার মাজারের পিছনের আনসার ক্যাম্পের পাশে ওই তরুণীকে ছুরির মুখে জিম্মি করে গণধর্ষণ করে নাঈম ও তার বন্ধুরা।

শাহবাগ থানার ডিউটি অফিসার জানান, ধর্ষণের পর রাত সোয়া ১২টার দিকে ওই তরুণী রিকশাযোগে বাসার উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে নীলক্ষেত মোড়ে পেীঁছালে বিষয়টি দায়িত্বরত পুলিশের নজর কাড়ে। পরে তারা রিকশা থামিয়ে ওই তরুণীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বিভিন্ন তথ্য বেরিয়ে আসে। দায়িত্বরত পুলিশ তাকে উদ্ধার করে শাহবাগ থানায় নিয়ে আসে। উদ্ধারের পর তরুণীকে সঙ্গে নিয়ে রাতেই ৪ প্লাটুন পুলিশ সন্দেহভাজন এলাকায় তল্লাশি চালায়। ঘণ্টাব্যাপী চালানো ওই তল্লাশি শেষেও কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

মঙ্গলবার সকালে ধর্ষিতা তরুণী বাদি হয়ে নারী ও শিশু আইনে নাঈমকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাতনামা আরো চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে। মামলার এজাহার নম্বর-১৭। শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, মেডিকেল পরীক্ষার জন্য তরুণীকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। আইন অনুযায়ী অপরাধীদের সনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ আলী বলেন, এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে। তারা প্রকৃতই ঢাবির শিক্ষার্থী কিনা তা যাচাই করা হবে। শীর্ষনিউজ

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 SwadeshNews24
Site Customized By NewsTech.Com