1. ccadminrafi@gmail.com : Writer Admin : Writer Admin
  2. 123junayedahmed@gmail.com : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর
  3. swadesh.tv24@gmail.com : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম
  4. swadeshnews24@gmail.com : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর: : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:
  5. hamim_ovi@gmail.com : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
  6. rifatkabir582@gmail.com : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান
  7. skhshadi@gmail.com : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান: : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান:
  8. srahmanbd@gmail.com : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
দাম্ভিকতা ভর করেছে সরকারে - Swadeshnews24.com
শিরোনাম
নতুন গবেষণায় মিলল হৃদ্‌রোগ ঠেকানোর মহৌষধ জিলহজ মাসের ফজিলত ও কোরবানির বিধিবিধান নতুন অর্থবছরের বাজেট পাস, কাল থেকে কার্যকর আলোচনায় সমাধান চায় গ্রামীণফোন ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু আবারও দেখা যেতে পারে রোনালদো–মরিনিও জুটি পাতালরেলের কাজ শুরু আগামী বছর আল্লাহ কি হাসেন জিলহজের প্রথম ১০ দিনে করণীয় ব্যবসায়ীরাই বাড়াচ্ছেন পেঁয়াজের দাম রাশিয়ার হাতে ‘বন্দি’ ইউক্রেনের ৬ হাজার সেনা ‘গেম চেঞ্জার’ সেই দ্বীপ থেকে সব সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা রাশিয়ার করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত দুই হাজারের উপরে কুড়িগ্রামে আবারও পানিবন্দি ৫০ হাজার মানুষ দৈহিক গড়নের কারণেই পিছিয়ে বাংলাদেশ!

দাম্ভিকতা ভর করেছে সরকারে

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ মে, ২০১৪
  • ১৭৭ Time View

1_7291অহমিকা আর দাম্ভিকতা আবারও ভর করেছে সরকারে। ভিতরে-বাইরে ঘিরে ফেলেছে রাহুচক্র। এতে ক্রমান্বয়ে সরকারের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতিতেও বিব্রত খোদ সরকার। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়েও পরিবর্তন নেই। আগের মতোই সুবিধাভোগী সুযোগসন্ধানীরা জেঁকে বসে আছেন সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদে। এ কারণেই সমস্যা বাড়ছে। বিভিন্ন খাতে বাড়ছে জটিলতা।জানা গেছে, শীর্ষ পর্যায়ের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি এবং মিডিয়া হাউসের সঙ্গে সরকারের বিস্তর ফারাক। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় মানুষের মন জয় নয়, অনেকটা গায়ের জোরেই সরকার পরিচালনার চিন্তাভাবনায় মশগুল। উন্নয়ন ও আইনের শাসন পদে পদে ব্যাহত হচ্ছে। সেই পুরনো চক্র কাজ করছে যারা বিগত পাঁচ বছর সরকারে থেকে ব্যবসায়ী, মিডিয়া ও রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের বিচ্ছিন্ন করেছিল। তারাই আবারও সক্রিয়। সিভিল প্রশাসন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়সহ যার যা কাজ নয়, তারা তা-ই করে বেড়াচ্ছে। শুধু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দোহাই দিয়ে সুবিধাভোগীরা রাষ্ট্র ও সরকারে শিকড় গেড়ে রয়েছেন। ত্যাগী নেতা-কর্মীরা সরকার ও দল- দুটো থেকেই বিচ্ছিন্ন। গুম-খুনে চারদিকে এক বিব্রতকর অবস্থা। র‌্যাব পুলিশে দূরত্ব বাড়ছে। কিছু মন্ত্রীর কার্যক্রম সরকারকে সংকটে ফেলছে। সর্বত্রই চেইন অব কমান্ড ভাঙার মহড়া চলছে।

সূত্রমতে, গেল পাঁচ বছরে যে উপদেষ্টা, পুলিশ ও সিভিল ব্যুরোক্রেসির আমলারা দাপুটে ছিলেন তারাই আবার সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সবকিছু দেখভাল করছেন। পুলিশের বিভিন্ন শাখার অত্যুৎসাহী কর্মকর্তারা আবারও তৎপর। তাদের কার্যক্রমে দূরত্ব তৈরি হচ্ছে বড় বড় মিডিয়া হাউস ও শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে। প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিক। তিনি চান সংকট নিরসন। সংকট নিরসন তাকেই করতে হয়। যেন তিনি সংকট নিরসন করবেন আর বাকিরা সংকট-সমস্যা তৈরি করবেন। তার চারপাশের একটি চক্র পরিস্থিতি জটিল করছে। দূরত্ব বাড়াচ্ছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে সরকার কঠিন সময়ের মুখোমুখি হতে পারে। সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে রাজপথে নামতে যাচ্ছে বিএনপি জোট। ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রাখা চক্র খেয়ালখুশিমতো যা খুশি তাই করছে। প্রশাসনের গতি স্বাভাবিক রাখার নেই কোনো কর্মসূচি। ফোর লেন, ফ্লাইওভার, পদ্মা সেতুসহ বিভিন্ন প্রকল্পের গতি মন্থর। দক্ষ, গণমুখীসহ সংকট মোকাবিলা করে চলার মতো কর্মকর্তা নেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। খোদ প্রধানমন্ত্রীকে অনেক সময় প্রকৃত খবর জানতে দেওয়া হচ্ছে না।

জানা গেছে, অনেক মন্ত্রী-এমপির আচরণে সরকার বিব্রত। কয়েকজন মন্ত্রী এরই মধ্যে সরকারকে বিতর্কিত ও বিব্রত করেছেন। নারায়ণগঞ্জের ঘটনা সমস্যা বাড়িয়েছে। ঢাকা সিটি করপোরেশন চলছে আমলাদের দিয়ে। নগরবাসীর দুয়ারে সেবা নেই। ভূরি ভূরি অভিযোগ আর অসন্তোষ। উপজেলা নির্বাচনও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে প্রতিদিন। র‌্যাব-পুলিশ দ্বন্দ্ব বিব্রতকর অবস্থা তৈরি করছে। নেতা-কর্মীরা এখনো গুরুত্ব পাচ্ছেন না। কেন্দ্র থেকে মাঠ সুবিধাভোগীদের দখলে। কর্মীদের কোনো মূল্যায়ন নেই। হতাশা প্রতিটি খাতে। ৫ জানুয়ারির বিতর্কিত নির্বাচন এখনো জনমনে দাগ কেটে আছে। ভারতের নতুন সরকারে স্বস্তিতে নেই আওয়ামী লীগ। এ অবস্থায় আবারও অহমিকা বিস্মিত করছে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আওয়ামী লীগ এবার ক্ষমতায় আসার পর সবার ধারণা ছিল পরিস্থিতি বদলে যাবে। সরকার গত পাঁচ বছরের মতো দাম্ভিক অবস্থানে থাকবে না। অকারণে সবার সঙ্গে বিরোধে জড়াবে না। মনোযোগ দেবে সুশাসন আর উন্নয়নের দিকে। কিন্তু বাস্তবতা সম্পূর্ণ আলাদা। সরকারের রাহুচক্র আবার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করছে। অযথা ঝামেলা বাড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনেক দাপুটে কর্মকর্তা ব্যস্ত নিজেদের আখের গোছানো নিয়ে। যার যা কাজ সেই কাজে নেই কেউ। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দূরত্ব বাড়ানোর জন্যও ওই চক্র বিভিন্নভাবে কাজ করছে। সূত্রমতে, এখনো প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সময় চেয়ে নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন শীর্ষ ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। এমনকি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী, সাংবাদিকদেরও নিস্তার নেই। গত পাঁচ বছরে যে স্টাইলে চলছিল, সেই ধারাবাহিকতায় আবারও সবকিছু চলছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আবারও খেই হারিয়ে ফেলছে সরকার। তবে এবার মাত্র চার মাসের মধ্যেই খেই হারানোর কারণে সেপ্টেম্বর থেকে সংকট বাড়বে চারদিকে।বা প্র

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category

ফটো গ্যালারী

© All rights reserved © 2020 SwadeshNews24
Site Customized By NewsTech.Com