1. ccadminrafi@gmail.com : Writer Admin : Writer Admin
  2. 123junayedahmed@gmail.com : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর
  3. swadesh.tv24@gmail.com : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম
  4. swadeshnews24@gmail.com : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর: : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:
  5. hamim_ovi@gmail.com : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
  6. rifatkabir582@gmail.com : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান
  7. skhshadi@gmail.com : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান: : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান:
  8. srahmanbd@gmail.com : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
‘নূর হোসেনকে বলেছিলাম যেভাবে বলি সেভাবে কাজ করো’ (ভিডিও) - Swadeshnews24.com
শিরোনাম
দণ্ডিত হাজি সেলিম জামিন পেলেন ৭০ ভাগ মানুষ চায় রোনাল্ডো না খেলুক! নেইমারের ব্রাজিলকেই ফেবারিট মানেন মেসি খেলতে নামার আগে জোড়া সুসংবাদ ব্রাজিলের ভেনিসে শামীম আহমেদ এর আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নাগরিক সচেতনতায়র্্যালী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত জনপ্রিয় টিকটকারের আকস্মিক মৃত্যু এবার জিৎ এর সিনেমা পরিচালনায় বাংলাদেশের সঞ্জয় সমাদ্দার এবার মেসির প্রেমে নায়িকা পূজা চেরি গাজায় বিমান হামলা চালাচ্ছে ইসরাইল পিইসি বাতিল, ফিরে এলো প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষা খালেদা জিয়ার ওপর নির্যাতনের আরেকটি নতুনমাত্রা যুক্ত হয়েছে: রিজভী নিজ বাড়ি থেকে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ব্লক রেইড ম্যাচ জয়ের পর যা বললেন মেসি

‘নূর হোসেনকে বলেছিলাম যেভাবে বলি সেভাবে কাজ করো’ (ভিডিও)

  • Update Time : শুক্রবার, ২৩ মে, ২০১৪
  • ২৩৫ Time View

vlcsnap-2014-05-23-20h00m28s80আলোচিত সাত খুনের ঘটনার প্রধান আসামি নূর হোসেনের সঙ্গে ফোনালাপের কথা স্বীকার করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। তিনি বলেন, ‘নূর হোসেনকে আমি আত্মসমর্পণের পরামর্শ দিয়েছিলাম।’ তিনি বলেন, ‘নুর হোসেনকে আমি বলেছিলাম, আমি যেভাবে তোমাকে বলি সেভাবে কাজ করো। আদালতের কাছে আত্মসমর্পন করো। তাহলে তোমাকে কেউ মেরে ফেলতে পারবেনা’।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানে নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

শামীম ওসমান বলেন, ‘ আমার ফোন সবসময় খোলা থাকে। যত রাতেই ফোন আসুক জেগে থাকলে ফোন ধরি। রাতে একটা ফোন আসছে, বললাম কে? বলল হোসেন। আমার অডিওতে কিছুটা এডিট করা হয়েছে। দুইজন পুলিশ অফিসার আমাকে বলেছিল, শামীম ভাই, যদি আপনার সাথে নুর হোসেন যোগাযোগ করে, আর সে যদি জড়িত নাই থাকে তাহলে আইনের হাতে তাকে আত্মসমর্পন করতে বলেন। সে হিসেবে আমি নুর হোসেনকে বললাম, তুমি যদি এই ঘটনায় জড়িত নাই থাকো, তোমার তো অনেক টাকা আছে, তুমি বাসেত মজুমদার বা খন্দকার মাহবুব সাহেব আছেন, আমি বলে দিচ্ছি, তুমি তাদের কাছে যাও ভাই এবং আদালতের কাছে আত্মসমর্পন করো। যখন তুমি কোর্টে আত্মসমর্পন করবা তখন তোমাকে কেউ মেরে ফেলতে পারবেনা’।

তিনি আরো বলেন, ‘আমার ভয় ছিল যে, নুর হোসেনকেও তো কেউ মেরে ফেলতে পারে। যেটা ভয় ছিল নজরুলের শ্বশুরেরও। কারণ সে বেঁচে থাকলে এবং ধরা পড়লে কারা কারা জড়িত ছিল সেটা বের হয়ে আসতো, যদি সে জড়িত থাকতো, আর অবশ্যই সে জড়িত আছে। আমি তাকে বললাম যে, তুমি যদি অপরাধী না হও তাহলে যাও আইনজীবীর কাছে। নুর হোসেন বললো, না ভাই আমি ঐ আইনজীবীর কাছে যাবনা। কি যেন একজন আইনজীবীর কথা বলল, বললাম যে ঠিক আছে, যাও তাহলে ঐ আইনজীবীর কাছে। আমি যেভাবে সাজেশন দিই সেভাবে কাজ করো।

শামীম ওসমান বলেন, ‘ এরপর আমি নুর হোসেনের কাছে জানতে চাইলাম যে, তোমার পাসপোর্টে কি কোন দেশের ভিসা আছে? কারণ পার্টির হাইকমান্ড থেকে আমাকে জানতে চাইতে পারে নুর হোসেন কোথায় থাকতে পারে? সে বলল যে ভিসা নেই। আবার জানতে চাইলাম যে, কোন দেশের ভিসায় নেই। তখন সে বলল ইন্ডিয়ার ভিসা আছে। সুতরাং সে যদি লিগ্যাল ভিসায় ও যায় তাহলে ইন্ডিয়া গেছে।

তিনি বলেন, র‌্যাবের এডিজি যখন বলছেন যে, ইন্ডিয়ায় গেছে তখন ধরে নেয়া যায় যে ইন্ডিয়ায় গিয়েছে। কারণ র‌্যাব তো এখন অনেক আধুনিক, তাইনা? আমাদের কথাবার্তা নিয়ে ছেড়ে দেয়। এই আধুনিক র‌্যাব বলেছে যে, সে নাকি পালানোর আগের দিন গুলশানে ছিল। ্আর আমার সাথে সে যখন কথা বলে তখন ছিল ধানমন্ডি ৪ এ। যেহেতু র‌্যাব জানছে যে, নুর হোসেন কিলার। আমার সাথে কথা হচ্ছে সেটাও ধরে ফেলছেন। তাহলে আগের দিন গুলশানে পরের দিন ধানমন্ডিতে জানার পরও কেন তাকে গ্রেফতার করা হলোনা?

শামীম ওসমান বলেন, আমাকে র‌্যাবের এক বড় অফিসার হুমকি দিয়ে বলে, তিনি একজন মেজর জেনারেল র‌্যাঙ্কের। তার নাম বলবোনা। তিনি বললেন, আমরা না বাঁচলে আপনিও বাঁচবেন না। আমি বললাম, বাঁচা মরা তো আল্লাহর হাতে। আমি খুব কষ্ট পেলাম। আমি রাগ করে শহীদ চৌধুরীকে ধমক দিয়েছি। বলেছি, কেন আপনি এইসব উল্টাপাল্টা কথা বলেন। কারণ আমি বুঝতে পারছি যে, এখানে একটা গেম চলছে।

শামীম ওসমান বলেন, একজন তদন্ত কর্মকর্তা আছেন। তিনি গত দুই বছর ধরে আমার বিরুদ্ধে তদন্ত করছেন। কিন্তু আমার দুঃখটা হলো তদন্ত প্রতিবেদন কোর্টে যাওয়ার আগে পত্রিকায় চলে যায়। তাও আবার একটি বিশেষ পত্রিকায়।

তিনি বলেন, আজকেও আমার (শামীম ওসমান) আর নূর হোসেনের মধ্যে একটি ফোনালাপ প্রকাশ করা হয়েছে। এটিও প্রথম আলোয় করেছে। এটি যদি কালের কণ্ঠ, যুগান্তর, মানবকণ্ঠ কিংবা অন্য কোনো পত্রিকায় যেতো, আমি হ্যাপি (খুশি) হতাম। কিন্তু এটিও ওই বিশেষ পত্রিকায় গিয়েছে।

এসময় তিনি প্রথম আলোর প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এই পত্রিকাটি আসলে কী চায়। তারা কী দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায় নাকি আমাকে ‘মারতে’ চায়।

তিনি বলেন, আমার পরিবার থেকে আর রাজনীতি করতে চাই না। আমি নিজেও আর রাজনীতি করতে চাই না। আমি আর পারছি না। আমি টায়ার্ড। রিয়েলি আমি খুব টায়ার্ড।

তিনি নিজের জন্য শঙ্কাপ্রকাশ করে বলেন, আমি শক্তিশালী নই। যারা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে তাদের তুলনায় আমি দুর্বল, অসহায়।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে নারায়ণগঞ্জে আমার লোকজনকে নির্মমভাবে হত্যা ও গুম করা হচ্ছে। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি। শিশুরাও সেখান থেকে বাদ যায়নি। আমার রাজনীতি ছেড়ে দেওয়া উচিত।
শামীম ওসমান বলেন, ‘একের পর এক আমার নেতাদের হত্যা করা হচ্ছে। যারা আমাকে ঘায়েল করার জন্য এ সব ঘটনা ঘটাচ্ছে তারা আমার চেয়ে শক্তিশালী। আমি আমার নেতাকর্মীদের রক্ষা করতে পারি না। সুতরাং আমার রাজনীতি ছেড়ে দেওয়া উচিত।’

তিনি নারায়ণগঞ্জে হত্যাকা-ের শিকার মেধাবী শিক্ষার্থী তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বীর নির্বাচনে দাঁড়ানোকে চক্রান্ত আখ্যা দিয়ে বলেন, একটি ব্যাংক তার কাছে ১৯ কোটি ৩৪ লাখ টাকা পায়। এছাড়া একটা গার্মেন্টস কোম্পানির নামে তিনি ঋণ নিয়েছেন। অথচ ওই গার্মেন্টে কোনো মেশিনই নেই।

তিনি বলেন, একজন ঋণ খেলাপি হয়েও তিনি নির্বাচন করার জন্য মনোয়নয়নপত্র কিনেছেন। এটি একটি চক্রান্ত। হয়তো কোনো মহল তাকে দিয়ে এই চক্রান্ত করাচ্ছেন। ওই মহল আমার বিরুদ্ধে সব সময়ই সক্রিয়। তারা হয়তো বলেছে নির্বাচন করেন আমরা আপনার ঋণ শোধ করে দেবো। আজ হয়তো তিনি নির্বাচন করছেন। দেখা গেল কাল তিনি আর ‘নাই’।

এসময় নূর হোসেনের সঙ্গে ফোনালাপের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, শুধু এই বিষয় নয়। আমার বিরুদ্ধে একটি মহলই আছে যারা এসব করে। তারা আমার বিরুদ্ধে সব কিছু খুঁজে খুঁজে বের করে। এটা তো আর কোনো সাংবাদিক বা কোনো রাজনীতিক করেনি। এটা করেছে কোনো গোয়েন্দা সংস্থার লোকেরা। আমি জানি এবং বুঝি। আমি বুঝেই কথা বলি। না বুঝে কথা বলি না।

https://www.youtube.com/watch?v=KyowYJ14LnM

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 SwadeshNews24
Site Customized By NewsTech.Com