Select your Top Menu from wp menus
মঙ্গলবার, ২৪শে অক্টোবর ২০১৭ ইং ।। দুপুর ১:৪৫

৪০ কোটি টাকার রাজস্ব হারালো বিমান

ই-ভিসাসহ নানা জটিলতায় এখন পর্যন্ত বিমানের ২১টি স্লট বাতিল হয়েছে। এ কারণে চার হাজার চারশ’ হজযাত্রী নেয়া সম্ভব হয়নি। এতে বিমানের ৪০ কোটি টাকা রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে। গতকাল বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রধান কার্যালয় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ক্যাপ্টেন (অব.) মোসাদ্দিক আহমেদ এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতির যে অবসান হবে, সেই জায়গাটায় আমরা এখনও যেতে পারছি না। বাড়ি ভাড়া করার ক্ষেত্রে হজ এজেন্সিগুলোর সমন্বয়হীনতার কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছি। তাই সঙ্কট কাটিয়ে হজযাত্রীদের সবাইকে সৌদি আরবে পাঠানোর বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা চাই। বিমানের এমডি মোসাদ্দিক আহমেদ বলেন, হজযাত্রী পরিবহনে আমরা লাভ-লোকসান হিসাব করি না। এখানে ৪০ কোটি টাকা রাজস্ব আয় থেকে আমরা বঞ্চিত হচ্ছি। এটাকে লোকসান বলবো না, কারণ এ আয় থেকে আমাদের খরচও হতো। এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অন্য কোনো দেশের হজযাত্রীদের এমন সমস্যায় পড়তে হচ্ছে বলে আমার জানা নেই। তারা সরকারিভাবে হজ পালন করতে যান। যাত্রীদের পাঠানোর দায়িত্ব নির্দিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠানের ওপরই থাকে। এক সপ্তাহের মধ্যে ৫২ হাজার হজযাত্রীর ভিসা করিয়ে সব আনুষ্ঠানিকতা সেরে তাদের জন্য ফ্লাইটের ব্যবস্থা করার বিষয়টিকে বেশ কঠিন বলে মনে করেন মোসাদ্দিক আহমেদ। তিনি বলেন, এটা খুব চ্যালেঞ্জিং একটা সিচুয়েশন। সিচুয়েশনটা ইমপ্রুভ করা দরকার। আমরা এর মধ্যে হজযাত্রী পরিবহনের জন্য ১৪ টি স্লটের আবেদন করেছিলাম। যার মধ্যে সাতটি আমরা ব্যবহার করতে পারব। বিমানের এত বেশি ফ্লাইট বাতিল হলেও সৌদিয়া অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের ক্ষেত্রে ততটা সমস্যা না হওয়ার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মোসাদ্দিক বলেন, সৌদিয়ার কোনো হজ ফ্লাইট নাই। সেখানে শিডিউলড ফ্লাইটে যাত্রীরা যাতায়াত করছে। কিন্তু বিমানের যেগুলো বাতিল হয়েছে সবগুলো হজ ফ্লাইট। যাত্রী না থাকার কারণে সেগুলো বাতিল হয়েছে। এদিকে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার ৩০শে আগস্ট হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়ে ৪ঠা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলতে পারে। সৌদি সরকার ১৭ই আগস্ট পর্যন্ত ভিসা দেবে এবং হজের শেষ ফ্লাইট যাবে ২৬শে আগস্ট। যাত্রী না পাওয়ায় গতকাল পর্যন্ত মোট ২১ টি হজ ফ্লাইট বাতিল করেছে বিমান, যেসব ফ্লাইটে সাড়ে আট হাজার যাত্রী জেদ্দা যেতে পারতেন। এর বাইরে হজযাত্রী পরিবহনের দায়িত্বে থাকা সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সেরও চারটি ফ্লাইট বাতিল হয়েছে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *