1. ccadminrafi@gmail.com : Writer Admin : Writer Admin
  2. 123junayedahmed@gmail.com : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর : জুনায়েদ আহমেদ, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর
  3. swadesh.tv24@gmail.com : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম : Newsdesk ,স্বদেশ নিউজ২৪.কম
  4. swadeshnews24@gmail.com : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর: : নিউজ ডেস্ক, স্বদেশ নিউজ২৪.কম, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:
  5. hamim_ovi@gmail.com : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : Rj Rafi, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
  6. rifatkabir582@gmail.com : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান : রিফাত কবির, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান
  7. skhshadi@gmail.com : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান: : শেখ সাদি, সম্পাদনায়-সাইমুর রহমান:
  8. srahmanbd@gmail.com : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান : এডমিন, সম্পাদনায়- সাইমুর রহমান
ফিটনেসবিহীন গাড়ির দখলে ঢাকা - Swadeshnews24.com
শিরোনাম
দণ্ডিত হাজি সেলিম জামিন পেলেন ৭০ ভাগ মানুষ চায় রোনাল্ডো না খেলুক! নেইমারের ব্রাজিলকেই ফেবারিট মানেন মেসি খেলতে নামার আগে জোড়া সুসংবাদ ব্রাজিলের ভেনিসে শামীম আহমেদ এর আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নাগরিক সচেতনতায়র্্যালী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত জনপ্রিয় টিকটকারের আকস্মিক মৃত্যু এবার জিৎ এর সিনেমা পরিচালনায় বাংলাদেশের সঞ্জয় সমাদ্দার এবার মেসির প্রেমে নায়িকা পূজা চেরি গাজায় বিমান হামলা চালাচ্ছে ইসরাইল পিইসি বাতিল, ফিরে এলো প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষা খালেদা জিয়ার ওপর নির্যাতনের আরেকটি নতুনমাত্রা যুক্ত হয়েছে: রিজভী নিজ বাড়ি থেকে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ব্লক রেইড ম্যাচ জয়ের পর যা বললেন মেসি

ফিটনেসবিহীন গাড়ির দখলে ঢাকা

  • Update Time : মঙ্গলবার, ৬ মে, ২০১৪
  • ২৬৭ Time View

বিশ বছরের পুরনো ও ফিটনেসবিহীন গাড়ি ঢাকার রাস্তা থেকে তুলে দেয়ার ঘোষণা বহুবার দেয়া হলেও বাস্তবে এসব গাড়ির সংখ্যা বেড়েই চলছে। ঢাকার মিরপুর, busগাবতলী ও সায়দাবাদ এলাকার সড়কগুলোতে বিশ বছরের পুরনো গাড়ি বেশি দেখা গেলেও প্রায় সব সড়কেই ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল করতে দেখা যায়। ফিটনেসবিহীন এসব গাড়ির যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়া পুরনো এসব গাড়ির অধিকাংশ চালকেরই বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। তারা কম্পিউটারে তৈরি করা বা কপি ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে দিনের পর দিন রাজধানীতে গাড়ি চালাচ্ছে।
মিরপুর চিড়িয়াখানা থেকে গুলিস্তান সদরঘাট এলাকায় গাড়ি চালান আবুল হাশেম। তিনি জানান, বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকলেও মাসিক চাঁদা দিতে হয়, আর অবৈধ থাকলেও একই কাজ করতে হয়। তার জন্য নতুন চালকরা টাকা খরচ করে লাইসেন্স করতে চায় না। এছাড়া এসব গাড়ির অনেক চালকেরই বয়স কম হওয়ায় তারা লাইসেন্স আবেদনও করতে পারে না। কিন্তু এত কম বয়সীদের হাতে গাড়ি নিরাপদ কিনা জানতে চাইলে আবুল হাশেম বলেন, এদের বেশিরভাগই হেলপারি করে ড্রাইভার হয়েছে। তারা রাস্তার সব খুঁটিনাটি জানে। এছাড়া গাড়ির মালিকরা বড় নেতা। কোন কিছু হলে তারাই সব ব্যবস্থা করে দেন। তিনি জানান যাত্রী চাহিদা প্রতিদিনই বাড়ছে। কিন্তু সে তুলনায় নতুন গাড়ি আমদানি না হওয়ায় নেতারা পুরনো গাড়িগুলোকেই ভালো করে রাস্তায় নামাচ্ছে।
যাত্রী পরিবহনের চাহিদা ও যানযট নিরসনে ২০০১ সালের পর থেকেই চায়না থেকে আমদানিকৃত বড় কোচগুলো বিভিন্ন রাস্তায় নামতে শুরু করে। একই সময় বিআরটিসি কোটি টাকা মূল্যের সুইডিশ ভলভো গাড়ি চলাচল শুরু করে মিরপুর ও উত্তরা সড়কে। কিন্তু গত দশ বছরের মধ্যেই ভলভো গাড়িগুলো পুরোপুরি অকেজ হয়ে পড়ে। আর চাইনিজ গাড়িগুলো লক্কর ঝক্কর করে চলছে এখনো। এসব গাড়িতে উঠে বৃষ্টির সময় যেমন ভিজতে হয়, তেমনি গরমের সময় ধুলোবালি ও রোদে তাপ সইতে হয়। গাড়িগুলো পুনরায় মেরামত ও সিএনজি সিলিন্ডার পুনরায় চেক করার ক্ষেত্রে মালিদের কোন উদ্যোগ নিতে দেখা যায় না। এসব গাড়ির সিএনজি সিলিন্ডারগুলো এতটাই অরক্ষিত থাকে যে, খুব সহজেই অন্য গাড়ির সাথে সিলিন্ডারগুলোর ধাক্কা লাগার সম্ভাবনা থাকে।
গবেষণা প্রতিষ্ঠান ডব্লিউ বিবি ট্রাস্টের জৈষ্ঠ গবেষক মারুফ আহমেদ আমাদের সময় ডটকমকে বলেন, বিশ বছরের পুরনো গাড়ি উঠিয়ে দেয়ার কথা অনেকবার বলা হলেও এখনো তা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও বলেছেন ঢাকা শহর থেকে লক্কর ঝক্কর গাড়ি তুলে দেয়া হবে। কিন্তু তারপরেও গাড়িগুলো উঠানো সম্ভব হয় নি। প্রতিদিন ঢাকার ৮০ লাখ কর্মজীবী মানুষের ৯০ ভাগই চলাচল করে পাবলিক পরিবহনে করে। এসব মানুষের বিকল্প পরিবহনের ব্যবস্থা না করে যদি হঠাৎ লক্কর ঝক্কর গাড়িগুলো উঠিয়ে দেয়া হয় তাহলে সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়বে। ফিটনেসবিহীন পুরনো গাড়িগুলো উঠানোর আগে সেই অনুপাতে নতুন গাড়ির ব্যবস্থা করেই সেগুলো উঠানো দরকার।
তিনি বলেন, পুরনো গাড়িগুলো যেকোন সময় দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে, আবার রাস্তায় যখন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তখন তা যানযটেরও কারণ হচ্ছে। এজন্য এসব গাড়ি শহর থেকে উঠিয়ে দেয়ার জন্য নাগরিক সমাজ থেকে বার বার আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে না। ঢাকার পরিবহন ব্যবসার সাথে জড়িত সাইদুল ইসলাম বলেন, এসব পরিবহনের সাথে রাজনৈতিক দলের কর্মীরা জড়িত। অত্যন্ত কম মূল্যে গাড়িগুলো কিনে তারা ভালো ব্যবসা করছেন। তাদের আয়ের বিকল্প ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত এসব গাড়ি উঠিয়ে দেয়া সম্ভব হবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 SwadeshNews24
Site Customized By NewsTech.Com